‘জাতীয় পরিবেশ পদক ২০২২’ অর্জন, দূষণমুক্ত বাংলাদেশের প্রত্যাশায় কনকর্ড গ্রুপ

[ad_1]

পরিবেশবান্ধব নির্মাণসামগ্রী তৈরির অগ্রদূত কনকর্ডের প্রতিষ্ঠা হয় ১৯৭৩ সালে। স্বাধীনতার কিছু পরে জোর দেওয়া হয় পুনর্বাসনের কাজে। এস এম কামালউদ্দিন কনকর্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। কনকর্ডের প্রথম কাজ ছিল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ক্ষতিগ্রস্ত সাতটি সেতু পুনর্নির্মাণ। সেই থেকে কনকর্ড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের যাত্রা শুরু। বর্তমানে দেশের অন্যতম বড় নির্মাণপ্রতিষ্ঠান এটি।

ঢাকা শহরের সুউচ্চ ও সুন্দর ভবন বা স্থাপনা, যেমন মতিঝিলের ২০ তলা শিল্পব্যাংক ভবন, ২২ তলা জীবন বীমা ভবন, জনতা ব্যাংকের ২৪ তলা প্রধান কার্যালয় আশি ও নব্বইয়ের দশকের মধ্যে নির্মাণ করেছিল কনকর্ড। বাংলাদেশ স্টিল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশনের কার্যালয় ভবন, তিতাস গ্যাসের প্রধান কার্যালয়, টিঅ্যান্ডটি ভবন, বিমানবন্দরে ভিআইপি টার্মিনাল—এ রকম অসংখ্য ভবন ও স্থাপনা কনকর্ডের তৈরি। ১৯৯৮ সালের পর প্রায় ২০০টি প্রকল্প করেছে কনকর্ড। লেক সিটি কনকর্ড, ওয়েস্টিন হোটেল, ফ্যান্টাসি কিংডম, ফয়’স লেক এবং হাতিয়ার ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের আবাসন নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছে কনকর্ডের হলো ব্লক।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment