ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে অফিস সহকারী গ্রেপ্তার

[ad_1]

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব প্রথম আলোকে বলেন, ওই বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী জাহাঙ্গীর হোসেনের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় তাঁকে আটক করে থানায় আনা হয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থীর বাবা বাদী মামলা করেছেন। আজ মঙ্গলবার তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত এজাহার, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই বিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রী বিদ্যালয়ের কাজে অফিস সহকারী জাহাঙ্গীর আলমের কক্ষে যেত। কিন্তু তিনি তাদের সঙ্গে অশ্লীল কথাবার্তা বলতেন ও কৌশলে ছাত্রীদের গায়ে হাত দিতেন। লজ্জায় বিষয়টি কাউকে কিছু বলত না ছাত্রীরা। সপ্তাহখানেক আগে দুই ছাত্রীর সঙ্গে একই আচরণ করেন তিনি। ঘটনাটি ওই দুই শিক্ষার্থী তাদের অভিভাবকদের জানায়। অভিভাবকেরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেন। কিন্তু বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ্ন হওয়ার কথা ভেবে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ আছে। এ নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হলে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়। গতকাল বিকেলে পাঁচবিবি সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার ইশতিয়াক আলম ও থানার ওসি পলাশ চন্দ্র দেব ওই বিদ্যালয়ে যান। নারী পুলিশ সদস্যরা কয়েকজন ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলে যৌন হয়রানির সত্যতা পান। এরপর পুলিশ অফিস সহকারীকে বিদ্যালয় থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment