অভিযোগের সত্যতা খুঁজতে পারে দুদক: হাইকোর্ট

[ad_1]

তথ্য পর্যালোচনা করে ঘোষিত আদেশে বলা হয়, ঘটনাদৃষ্টে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের নেতৃত্বে পরিচালনা পর্ষদের কোম্পানির তহবিল পরিচালনায় কিছু অনিয়ম অবশ্যই হয়েছে। গ্রামীণ টেলিকমের তহবিল থেকে বিপুল অর্থ প্রতিষ্ঠানটির সহযোগী অন্য প্রতিষ্ঠানে স্থানান্তরের অভিযোগ করেছেন আবেদনকারীরা। শ্রমিকদের টাকা (পাওনা) ট্রেড ইউনিয়ন ও তাঁদের আইনজীবীর হিসাবে পাঠানো শ্রমিক আইনের সংশ্লিষ্ট বিধানের লঙ্ঘন বলে অভিযোগ করেছেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ মেহেদী হাছান চৌধুরী। অভিযোগের সত্যতা খুঁজে বের করতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) প্রয়োজনীয় কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া যথাযথ বলে মনে করেন আদালত। পর্যবেক্ষণসহ বিষয়টি চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করা হলো।

গ্রামীণ টেলিকমের প্রতিষ্ঠাতা নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস।
আইনজীবীদের তথ্যমতে, লভ্যাংশের বকেয়া পাওনাকে কেন্দ্র করে গ্রামীণ টেলিকমের অবসায়ন চেয়ে গ্রামীন টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষে গত বছর হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। এর শুনানি নিয়ে আদালত কারণ দর্শাতে নোটিশ দেন। গত ৪ এপ্রিল আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করা হয়। পরে মামলা প্রত্যাহারের শর্তে পাওনা পরিশোধ নিয়ে দুই পক্ষের সমঝোতা হয়েছে জানিয়ে আদালতে মামলা না চালানোর কথা বলা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ মে না চালানোর দিক বিবেচনায় মামলা (অবসায়ন আবেদন) খারিজ হয়।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment