অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে শরীয়তপুরে ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

[ad_1]

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, দুর্নীতির মাধ্যমে আবদুস সালামের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ওঠে। ২০২০ সালে এক লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আবদুস সালামের সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করেন দুদকের ফরিদপুর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক কমলেশ মণ্ডল। তখন আবদুস সালাম শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ছিলেন। দুদকের অনুসন্ধান শুরুর পর তাঁকে শরীয়তপুর সদরের চন্দ্রপুর ইউনিয়নে বদলি করা হয়। এরপর তাঁকে জাজিরার পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নে বদলি করা হয়।

দুদকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, আবদুস সালাম খান তাঁর সম্পদ বিরবণীতে স্থাবর সম্পদ ও অস্থাবর সম্পদ মিলিয়ে ২৬ লাখ ৭০ হাজার ৪৯ টাকা মূল্যের সম্পদ গোপান করেছেন, যা দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪–এর ২৬ (২) ধারা অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ ছাড়া তিনি ১২ লাখ ৬১ হাজার ৪৪৩ টাকা মূল্যের জ্ঞাত আয়ের উৎসবহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও দখলে রেখেছেন, যা দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪–এর ২৭ (১) ধারা অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এ পরিস্থিতিতে চলতি বছরের ২০ জুলাই দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে আবদুস সালামের বিরুদ্ধে মামলা করার অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর গতকাল সহকারী পরিচালক আখতারুজ্জামান বাদী হয়ে মামলা করেন।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment