পোয়াবারো তেল কোম্পানির, বিশেষ করের প্রস্তাব

[ad_1]

পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে যে যুক্তরাজ্যের মতো উন্নত দেশের মানুষের পক্ষে জ্বালানির ব্যয় বহন করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে দেশটির বিভিন্ন পেট্রলপাম্প থেকে জ্বালানি চুরির ঘটনা বাড়ছে। এ বছরের শীতে সে দেশে বার্ষিক হিসাবে জ্বালানির ব্যয় দাঁড়াবে ৩ হাজার ৫০০ পাউন্ডের ওপরে।

এদিকে ২০২১ সালের নভেম্বর মাসে বাংলাদেশে ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে মূল্যস্ফীতির হার টানা ছয় মাস বেড়েছে। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির জেরে একসঙ্গে সব পণ্যের দাম বেড়েছে, এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছে দেশের মানুষ। এই পরিস্থিতিতে মানুষের সঞ্চয় কমতে শুরু করেছে।

অথচ এমন বাস্তবতায় বিশ্বের জ্বালানি কোম্পানিগুলো বিপুল মুনাফা করছে। বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ব্রিটিশ পেট্রোলিয়াম ১৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মুনাফা করেছে। আরেক কোম্পানি শেলেরও রেকর্ড মুনাফা হয়েছে। তেলের বাজারের চার বৃহৎ কোম্পানি এক্সন, শেভরন, শেল ও টোটাল এনার্জি সর্বশেষ প্রান্তিকে অর্থাৎ তিন মাসে ৫১ বিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করেছে, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দ্বিগুণ।

এই পরিপ্রেক্ষিতে শেল কর্মীদের এককালীন ৮ শতাংশ ভাতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। তারা বলেছে, মূল্যস্ফীতির কারণে নয়, বরং কর্মীদের মুনাফার অংশ দেওয়া হচ্ছে এর মাধ্যমে। তবে কোম্পানির প্রধান নির্বাহী এর আওতায় পড়ছেন না, কারণ কোম্পানির মুনাফা বৃদ্ধির পুরস্কার হিসেবে ইতিমধ্যে কয়েক দফায় তাঁর বেতন বেড়েছে।

এই পরিপ্রেক্ষিতে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, ‘এই জঘন্য লোভ বিশ্বের সবচেয়ে দরিদ্র মানুষদের আঘাত করছে, আর আমাদের এই অভিন্ন বসবাসের জায়গা নষ্ট তো করছেই। সে জন্য সংশ্লিষ্ট দেশের সরকারের প্রতি আমার আহ্বান, এসব তেল কোম্পানির অতিরিক্ত মুনাফার ওপর করারোপ করুন এবং সেই অর্থ দিয়ে সমাজের অরক্ষিত ও দরিদ্র মানুষকে সহায়তা করুন।’

এদিকে তেল কোম্পানিগুলোর অতিরিক্ত মুনাফার ওপর গত মাসে যুক্তরাজ্যে এককালীন ২৫ শতাংশ উইন্ডফল ট্যাক্স আরোপ করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাজ্য সরকার ২৫ বিলিয়ন বা ২ হাজার ৫০০ কোটি পাউন্ড কর আহরণ করবে বলে আশা করছে। এই অর্থ দিয়ে মূলত জ্বালানির ব্যয় মেটাতে হিমশিম খাওয়া পরিবারগুলোকে সহায়তা করা হবে। যুক্তরাজ্যের এই নজিরে আগ্রহী হয়ে ইতালি, ফ্রান্সসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশ এই উদ্যোগ নেওয়ার চেষ্টা করেছে। কিন্তু ফ্রান্সের সংসদ সদস্যরা এই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছেন। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে এমন প্রস্তাব কিছুটা রাজনৈতিক গতি পেয়েছে।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment