যুক্তরাষ্ট্রে মাঙ্কিপক্স প্রাদুর্ভাবকে জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা

[ad_1]

একই ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) পরিচালক রোচেল ওয়ালেনস্কি বলেন, জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণার ফলে মাঙ্কিপক্স সংক্রমণের তথ্য-উপাত্ত প্রাপ্তি বাড়বে। রোগটি মোকাবিলায় এই তথ্য-উপাত্তের প্রয়োজন রয়েছে।

মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাব সামাল দেওয়া নিয়ে চাপে আছে মার্কিন সরকার। দেশটিতে মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণ ছড়ানোর আগে ইউরোপে রোগটির প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। কিন্তু এখন বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রেই সবচেয়ে বেশি মাঙ্কিপক্সের রোগী শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে মাঙ্কিপক্সের টিকা ও চিকিৎসাসেবা অপর্যাপ্ত বলে খবরে বলা হচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) গত মাসে মাঙ্কিপক্সকে ‘আন্তর্জাতিক উদ্বেগের জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করে। এটি সংস্থাটির সর্বোচ্চ সতর্কতার মাত্রা।

ভাইরাসটি মোকাবিলায় সমন্বিত বৈশ্বিক পদক্ষেপের পাশাপাশি টিকা ও চিকিৎসার জন্য তহবিল ছাড় সহজ করার লক্ষ্যে এই ঘোষণা দেয় ডব্লিউএইচও।

মাঙ্কিপক্সের ক্ষেত্রে গুটিবসন্ত জন্য অনুমোদিত টিকা ও চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছে দেশগুলো। পাশাপাশি মাঙ্কিপক্স নিয়ে পৃথকভাবে কাজ চলছে।

মাঙ্কিপক্সের চিকিৎসায় দুটি কোম্পানির ৬ লাখ ১৪ হাজার টিকা সরবরাহ করেছে মার্কিন সরকার। তবে ইতিমধ্যে কতগুলো টিকা দেওয়া হয়েছে, সে তথ্য দেওয়া হয়নি।

ওয়ালেনস্কি বলেন, উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ১৬ লাখের বেশি মানুষকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে সরকার।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment