মিরপুরে বিএনপি সমাবেশস্থলে লাঠি নিয়ে অবস্থান আ. লীগের নেতা-কর্মীদের

[ad_1]

মিরপুরে বিএনপির পূর্বঘোষিত সমাবেশকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে দলটির নেতা-কর্মীদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বিএনপির নেতা-কর্মীদের হটিয়ে দিয়ে সমাবেশস্থলে লাঠিসোঁটা নিয়ে অবস্থান নিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা।
আজ বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটা থেকে ৩টা পর্যন্ত মিরপুর-৬ নম্বর কাঁচাবাজার থেকে মিরপুর ১০ সড়কে পাল্টাপাল্টি এ ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। কাঁচাবাজারের পাশে ৩টায় বিএনপির সমাবেশ হওয়ার কথা ছিল।
জ্বালানি তেল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি ও পুলিশের গুলিতে দলের নেতা-কর্মীদের নিহত হওয়ার প্রতিবাদে রাজধানীর ১৬টি জায়গায় সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল বিএনপি। ইতিমধ্যে দলটি চারটি জায়গায় সমাবেশ করতে পেরেছে দলটি।
মিরপুরে আজ বিএনপির কর্মসূচি শুরুর আগেই সমাবেশস্থলের আশপাশের এলাকায় লাঠিসোঁটা নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা মিছিল বের করেন। একপর্যায়ে সমাবেশে আসতে থাকা বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে তাঁদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়।
প্রায় আধা ঘণ্টা এই পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শেষ হওয়ার পরও ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা লাঠিসোঁটা হাতে ওই এলাকায় মিছিল করতে থাকেন। তাঁরা বিএনপির সমাবেশস্থলে লাঠিসোঁটা নিয়ে অবস্থান নেন।
ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্যসচিব আমিনুল হক প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশের মিরপুর জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) তিনটি জায়গা পরিবর্তন করে মিরপুর-৬ নম্বর কাঁচাবাজারের পাশে মুকুল ফৌজ মাঠে বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী অতর্কিত হামলা চালান। তিনি বলেন, শুরুতে বিএনপির নেতা-কর্মীরা হামলাকারীদের প্রতিরোধে চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের কথা বলে বিএনপির নেতা-কর্মীদের লক্ষ্য করে কাঁদুনে গ্যাস ছুড়তে থাকে। দলের নেতারা এ বিষয়ে কথা বলার জন্য পুলিশের মিরপুর জোনের ডিসির কার্যালয়ের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন বলেও জানান আমিনুল হক।
পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনায় তাৎক্ষণিক হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। পুলিশ ও আওয়ামী লীগের বক্তব্য নেওয়াও সম্ভব হয়নি।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment