মোদির জন্মদিনে ভারত পাচ্ছে চিতা

[ad_1]

আজ থেকে ঠিক পৌনে এক শ বছর আগে, ১৯৪৭ সালে, আজকের ছত্তিশগড়ের অধুনালুপ্ত সরগুজা স্টেটের রাজা রামানুজ প্রতাপ সিং দেও দেশের শেষ তিনটি চিতা শিকার করেছিলেন। তার পাঁচ বছর পর ভারত সরকার দেশে চিতা নিঃশেষ হওয়ার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেছিল। দীর্ঘ ৭৫ বছর পর সেই শূন্যতা কাটতে চলেছে বিস্তর কাঠখড় পোড়ানোর পর। কাল শনিবার সেই মাহেন্দ্রক্ষণ।

সংসদ সদস্য ওয়েইসি কটাক্ষ করেছেন ঠিকই, তবে বিজেপির প্রচারযন্ত্র উদ্‌যাপনের ঢক্কা নিনাদে ঘাটতি রাখছে না। ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে জীববৈচিত্র্যের সংরক্ষণে প্রধানমন্ত্রীর সচেষ্ট হওয়ার প্রচার। চিতা আগমন দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকর্ষণ করবে। বেড়ে যাবে আয় ও কর্ম সংস্থানের সম্ভাবনা। শাসক দল বিজেপির ‘ডবল ইঞ্জিন’ তত্ত্বও প্রচারের অভিমুখ দখল করেছে। যদিও ১০০ দিনের কাজ কিংবা সরকারি ভর্তুকি সরাসরি গরিবদের ব্যাংক খাতায় জমা দেওয়ার মতো চিতার প্রত্যাবর্তনের মূল উদ্যোগও শুরু হয়েছিল কংগ্রেস আমলে।

মজার বিষয় এ ক্ষেত্রেও রয়েছে কেন্দ্র রাজ্য বিবাদ এবং রাজ্যস্তরীয় গরিমা সর্বজনীন করে না তোলার এক চিরায়ত কাহিনি। সেই কাহিনির কেন্দ্রেও রয়েছে নরেন্দ্র মোদির অবস্থান।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment