ব্যর্থতা নিয়ে রাশিয়ার মধ্যেই ক্ষোভ

[ad_1]

পুতিনের রাশিয়ায় ক্রেমলিনের সমালোচনা করে টিকে থাকা কঠিন। পুতিনের সবচেয়ে কট্টর সমালোচক বলে পরিচিত অ্যালেক্সি নাভালনিকে প্রথমে বিষ প্রয়োগে হত্যার চেষ্টা করা হয়। পরে কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাঁকে। পুতিনের আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী বরিস নেমতসভকেও বন্দুকধারীর গুলি খেতে হয়েছে। কিন্তু বন্দুকধারীকে কে পাঠিয়েছেন, সে কথা বের করা সম্ভব হয়নি। ইউক্রেন আক্রমণ নিয়ে কথা বলার পর লেখক ও রাজনীতিবিদ ভ্লাদিমির কারা-মুরজা এখন কারাগারে।

প্যালিয়ুগা বলেছেন, পুতিনের নতুন সমালোচকেরা আইনের মধ্যে থেকে খুব সতর্কতার সঙ্গে কথা বলছেন। সেন্ট পিটার্সবার্গের স্থানীয় কাউন্সিলর কেসেনিয়া থরস্ট্রমও সতর্কতার সঙ্গেই পুতিনের সমালোচনা করেছেন। তিনি সিএনএনকে বলেন, পৌরসভার ডেপুটি হিসেবে বিবৃতি দেওয়া ছাড়া তাঁদের আর কোনো ক্ষমতা নেই।

পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টির পক্ষ থেকে সব ধরনের কাজে তাঁদের বাধা দেওয়া হয়। বাইসাইকেল লেন তৈরির মতো সামান্য উদ্যোগেও তারা বিরোধিতা করে।

থরস্ট্রম বলেন, সমস্যা শুধু ইউক্রেনে রুশ সেনাবাহিনী নিয়ে নয়। এর প্রভাব রাশিয়ার ভেতরেও পড়েছে। রুশ জনগণ আরও গরিব হয়েছে। কেউ তাঁদের স্বাগত জানাচ্ছে না। অনেক সুযোগ–সুবিধা সীমিত হয়ে গেছে। মানুষ এখন আরও বেশি অসুখী। এ পরিস্থিতিতে দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন তাঁরা।

[ad_2]

Source link

Leave a Comment